সরকারি চাকুরির হুকুম!

শায়খ আবুন নূর ফিলিস্তিনী হাফিজাহুল্লাহ

আসসালামু আলাইকুম

প্রশ্ন: ইরাকে তাগুত সরকারের প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করা এবং তাতে যোগদান করার বিধান কী?

  • প্রশ্নকর্তাঃ আবু উবাইদাহ

উত্তর:

الحمد لله رب العالمين والصلاة والسلام على خاتم الأنبياء المرسلين و على آله وصحبه ومن تبعهم بإحسان إلى يوم الدين، وبعد

প্রশ্নকারী ভাই, আল্লাহ তাআলা আমাকে আপনাকে তাঁর পছন্দ ও সন্তুষ্টির পথে পরিচালিত করুন। জেনে রাখা দরকার, তাগুত সরকারের অধীনে চাকুরী করা- ইরাকেই হোক বা অন্য কোনো মুসলিম দেশে, যেখানে কুফুরী বিধিবিধান অগ্রাধিারযোগ্য, যার পরিচালনার দায়িত্বও তাদের হাতে; এমতাবস্থায় বিষয়টি তিন বিধানের কোনো একটির বাইরে না।

হয়তো কুফরী হবে অথবা হারাম হবে নতুবা মাকরূহ হবে। প্রত্যেকটি বিধান তার কারণ অনুপাতে প্রযোজ্য। Continue reading

ওকালতি/ আইন পেশায় জড়ানোর ব্যাপারে ইসলামের বিধান!

প্রশ্ন: মুসলমানদের সাহায্য করা এবং তারা যদি তাওয়াগিতের (মিথ্যা ইলাহ) প্রশ্নের সম্মুখীন হয় তবে তাদের রক্ষা করার অজুহাতে মানবরচিত আইন দ্বারা গঠিত জাহেলী আইনব্যবস্থায় কাজ করার অনুমতি আছে কি? Continue reading

কুফফারদের সাথে নম্রতা ও আনন্দের সাথে কথা বলার হুকুম কি?

প্রশ্নঃ শ্রদ্ধেয় শায়েখ! আমাদের সমস্যা হলো আমাদের মা অসুস্থ ছিলেন এবং আমাদেরকে তাকে নিয়ে আমেরিকায় যেতে হয়। যদিও বিষয়টি আমাদের জন্য খুবই বিরক্তিকর ছিল কিন্তু অনেক চিন্তাভাবনা এবং ইস্তেখারা করার পরই আমরা এই পদক্ষেপ গ্রহন করি। 

তাই আমরা যখন সেখানে ছিলাম আমাদের সাথে মেডিক্যাল কর্মকর্তা না হয় সাধারন জনগনের আচরন ভালো ছিল। প্রত্যেকেই আমাদের সাথে সৌহার্দ্য পূর্ন, সহানুভূতিশীল আচরণ করে। প্রতিউত্তরে আমার অন্তরে তাদের প্রতি ঘৃণা থাকা সত্ত্বেও আমি তাদেরকে স্বাগতম জানাই এবং তাদের মেয়েদেরকে সহাস্য অভিনন্দন জানাই এই কামনা নিয়ে যেন তারা ইসলামের দিকে আকৃষ্ট হয়। Continue reading

শরীয়তের বদলে অন্য বিধান গ্রহণকারীদের ব্যাপারে ইবনে কাসীর (রহঃ) এর ফতোয়া

 

আল্লাহ তা’আলা বলেন:

أفحكم الجاهلية يبغون ومن أحسن من الله حكما لقوم يوقنون

তারা কি জাহিলিয়্যাতের শাসন-ব্যবস্থা কামনা করে? দৃঢ় বিশ্বাসী সম্প্রদায়ের জন্য আইন প্রণেতা হিসেবে আল্লাহর চাইতে উত্তম কে আছে? (সূরা মায়েদা: ৫০)

Continue reading

কোনো ব্যক্তিকে কাফির বলার ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন!

শায়খ সুলাইমান আল উলওয়ান

প্রশ্নঃ শায়খ, আল্লাহ আপনাকে উত্তম পুরস্কার দান করুন। আজকাল তাকফীর আল মুয়া’ইয়ান [কোন ব্যক্তিকে কাফের ঘোষনা করা] অনেক বেড়ে গেছে। এমনকি কিছু ত্বলিবে ইলম (দীনি শিক্ষার ছাত্র)ও এই কাজে লিপ্ত হচ্ছেন। এছাড়াও কিছু মানুষ সর্বদাই তাকফীরের ব্যাপারে আলোচনায় মগ্ন থাকে। অথচ এদের অনেকেই দ্বীনচর্চার ক্ষেত্রে অনেক পিছিয়ে আছে। এ ব্যাপারে আপনার মতামত কি?

উত্তরটি দিয়েছেন শায়খ সুলাইমান আল-উলওয়ান (আল্লাহ শায়খকে দ্রুত সৌদি তাগুতদের কারাগার থেকে মুক্তি দান করুন) Continue reading

সৌদি সরকার সম্পর্কে শারিয়াহ’র ফয়সালা

উত্তর প্রদানে -শায়খ আবু বাসির মুস্তফা আত-তারতুসি (হাফিজাহুল্লাহ)

প্রশ্নঃ

আমি মনে করি, সৌদি সরকারের অধীনে সৌদি আরবে যা ঘটেছে এবং এখনো ঘটছে, তা আপনার মত মানুষদের কাছে গোপন নয়। যদি আপনি (আল্লাহ আপনাকে রক্ষা করুন) যুবকদের আবশ্যক করণীয়গুলোর ব্যাপারে দিক নির্দেশনা দিতেন, বিশেষকরে সরকার যেহেতু ঈমান ও জিহাদের অনুসারীদের বন্দি অথবা হত্যা করার মাধ্যমে টার্গেট করা শুরু করেছে । Continue reading

সংসদ ও সংসদ সদস্যদের ব্যাপারে বিধান কি?

প্রশ্ন:    সংসদগুলোর ব্যাপারে বিধান কি এবং যারা এগুলোতে যারা প্রবেশ করে তাদের ব্যাপারে বিধান কি?

উত্তরঃ

সংসদগুলোর ব্যাপারে বিধান হচ্ছে এগুলোর ইসলামে অনুমতি নেই এবং এগুলো শিরক ও কুফরের জায়গা এবং আমরা এগুলোকে তাগুত হিসেবে দেখি কেননা এগুলো হচ্ছে আইন প্রণয়নের এবং আল্লাহ’র অবতীর্ণ আইন(শরীয়াহ) ব্যাতীত অন্য ভাবে আইন তৈরীর স্থান। Continue reading

উকালতি/আইনব্যবস্থায় কাজ করার অনুমতি আছে কি?

প্রশ্ন:    মুসলমানদের সাহায্য করা এবং তারা যদি তাওয়াগিতের (মিথ্যা ইলাহ) প্রশ্নের সম্মুখীন হয় তবে তাদের রক্ষা করার অজুহাতে মানবরচিত আইন দ্বারা গঠিত জাহেলী আইনব্যবস্থায় কাজ করার অনুমতি আছে কি?

উত্তর দিয়েছেন  শায়খ আলি বিন খুদাইর আল খুদাইর –

এটা অনুমোদিত নয় যদি এর অর্থ হয় এমন আইন মানা যা আল্লাহর আইনবিরুদ্ধ।
যদি সে জেনেও স্বেচ্ছায় এমন আইন নিয়ে কাজ করে যা শরীয়াহবিরুদ্ধ, তবে এটা কুফরি এবং রিদ্দা এবং তাগুতে বিশ্বাস – আল্লাহ আমাদের এসব থেকে হেফাজত করুন। Continue reading

বিবাহ কি জিহাদের জন্য বাঁধা?

প্রশ্ন:
আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বর্তমানে কি বিবাহকে জিহাদের জন্য একটি প্রতিবন্ধক গণ্য করা হবে না?

যা যুবকদেরকে সীমান্ত প্রতিরক্ষায় অংশগ্রহণ করা থেকে ফিরিয়ে রাখে এবং ধীরে ধীরে জিহাদ থেকেই সে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বিশেষ করে অনেক যুবক অভাব-অনটনের শিকার হওয়ার ফলে একই সাথে জিহাদ ও সংসার চালানো তার জন্য কঠিন হয়ে পড়ে।

হয়তো তাকে পরিবার নিয়েই ব্যাস্ত থাকতে হবে, অথবা জিহাদের জন্য পরিবারকে বর্জন করতে হবে। সম্মানিত মুফতি সাহেবের নিকট সঠিক সমাধান আশা করছি। Continue reading

আমরা কি পার্লামেন্টের সকল সদস্যকে কাফের গণ্য করব?

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু,
পার্লামেন্ট মেম্বাররা আল্লাহ তায়ালাকে বাদ দিয়ে নিজেরা হুকুম প্রবর্তন করে, এজন্য কি আমরা তাদের সবাইকে কাফের গণ্য করব?

তাদের মধ্যে হামাস বা ইখওয়ানুল মুসলিমীনের সদস্যরাও রয়েছে যাদের নিকট তাদের কাজের ভিন্ন ব্যখ্যাও রয়েছে।

শায়খ থেকে এ ব্যপারে উত্তর আশা করছি, আল্লাহ তায়ালা আপনাকে উত্তম বিনিময় দান করুন।
Continue reading

মুরতাদ সৈন্যের সন্তানের চিকিৎসার খরচের জন্য টাকা সংগ্রহ বৈধ হবে কি?

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ..।

শায়খ! আমার শ্বশুর আমার কাছে আবেদন করেছেন যেন নিচের প্রশ্নটি লিখে আপনাদের কাছে পাঠাই। প্রশ্নটি হলো:

একটি শিশু তার জন্ম থেকেই নাক নেই, একটি অপারেশনের মাধ্যমে হয়তো নাক সংযোজন করা যাবে, তাতে খরচ হবে প্রায় ৪০ হাজার মার্কিন ডলার। আমার শ্বশুর চাচ্ছেন, এ শিশুটির জন্য লোকদের কাছ থেকে এ অর্থ যোগাড় করতে। কিন্তু ব্যাপার হলো, তার বাবা ইরাকের কুর্দি কাফের সরকারের একজন সামরিক সৈনিক। Continue reading

যুদ্ধরত কাফিরদের সাথে সম্পর্কচ্ছেদের ব্যাপারে শাইখুল আরব ওয়াল আজম মাওলানা হুসাইন আহমদ মাদানী (রঃ) এর ফতোয়া

Continue reading

যদি কেউ পার্লামেন্টে অংশ নিতে চায়, তবে সেটা কি কুফর হিসাবে গণ্য হবে? এ কাজ কি কাউকে মুরতাদ বানিয়ে ফেলে?

প্রশ্নঃযদি কেউ পার্লামেন্টে (জাতীয় সংসদে) অংশ নিতে চায়, তবে সেটা কি কুফর হিসাবে গণ্য হবে? এ কাজ কি কাউকে (ইসলাম) ধর্মত্যাগী বানিয়ে ফেলে অথবা ইসলাম ত্যাগ করতে বাধ্য করে ?

Continue reading

একজন মানুষের আমল/কর্ম তাকে ঈমানের বাইরে নিয়ে যায় না’, তাহলে কি তাকে মুরজি’আ বলা যাবে?

প্রশ্ন: কেউ যদি বলে যে, ‘ঈমান বাড়ে এবং কমে , আমাদের কাজও ঈমানের অংশ,কিন্তু একজন মানুষের কর্ম তাকে ঈমানের বাইরে নিয়ে যায় না’, তাহলে কি তাকে মুরজি’আ বলা যাবে?

জবাব দিয়েছেনঃ শায়খ সুলাযইমান বিন নাসের আল উলওয়ান (আল্লাহ্ তাঁকে সৌদি কারাগার থেকে দ্রুত মুক্তি দান করুন)

Continue reading

যারা আল্লাহর বিধান ব্যতীত অন্য বিধান দিয়ে শাসন করে তাদের ব্যাপারে শরীয়তের হুকুম কি?

প্রশ্ন: যারা আল্লাহর বিধান ব্যতীত অন্য বিধান দিয়ে শাসন করে তাদের ব্যাপারে শরীয়তের হুকুম কি?

তারা কি উমাইয়্যা কিংবা আব্বাসিদের মতো ‘কুফর দুনা কুফর’ এর অন্তর্গত? না তাদের কুফরটি এমন বড় কুফর যা কোন ব্যক্তিকে ইসলামের গন্ডী থেকে বের করে দেয়?

আর আমাদের উপর এসব শাসকদের ব্যাপারে হুকুম কি যেন এ ব্যাপারে আল্লাহর সামনে আমরা ক্ষমা পেতে পারি (সে অনুযায়ী কাজ করে), যদি উভয় প্রেক্ষিতেই হয়? Continue reading

শারিয়াহর পরিবর্তে আইন রচনাই কি ইসলাম ত্যাগের জন্য যথেষ্ট? নাকি অন্তর থেকেও অবিশ্বাস জরুরী?

উত্তর প্রদানে – শায়খ সুলাইমান আল ‘আল্ওয়ান (আল্লাহ্ তাঁকে সৌদি কারাগার থেকে মুক্তি দান করুন)

প্রশ্নঃ

আমি শায়খ মুহাম্মাদ বিন সালিহ আল উসাইমীন (আল্লাহ তাঁকে রক্ষা করুন) কর্তৃক লিখিত বই ‘আল ক্বাউল আল মুফীদ ফী শারহু কিতাব আত-তাওহীদ’ এ উনার কথা পড়েছি। সেখানে তিনি যা উল্লেখ করেছেন তার অর্থ এরূপঃ ‘আল্লাহ যা নাযিল করেছেন তা ব্যতীত অন্য কোন আইন দ্বারা যারা শাসন করে তাদের মনে এই বিশ্বাস কাজ করে যে এইসব মানবরচিত আইন তাদের দেশের ও দেশের মানুষের জন্য অধিক উপকারী ও আল্লাহর আইন অপেক্ষা শ্রেয়’। 

এটা কি সত্য যে, কোন শাসক যদি শরীয়ার কোন আহকামকে প্রতিস্থাপন করেন তাহলে এটাই প্রমাণ হয় যে তিনি মানবরচিত আইনকে আল্লাহর শরীয়াহ অপেক্ষা শ্রেয় মনে করেন? এটা কি তার কুফরের কারণ হবে? নাকি এরূপ কাজ নিজেই একটা কুফর?

Continue reading