ইসলাম ও ইখওয়ানঃ সংঘাত যেখানে

ইখওয়ান ও সমমনা দলগুলো মাসলাহাত, আধুনিকায়ন ও বাস্তবমুখী হবার নাম করে ক্রমান্বয়ে বিভিন্ন আক্বিদা ও মানহাজগত বিচ্যুতির স্বাভাবিকীকরন করেছে। প্রয়োজন মতো শারীয়াহর নসের বিকৃতি ও ভুল ব্যাখ্যা করেছে, আর যখন তা যথেষ্ট হয় নি তখন বিভিন্ন বুদ্ধিজাত ব্যাখ্যা-বিশ্লেষন আর রেটোরিক দিয়ে যা জায়েজ করা দরকার তা জায়েজ করে নিয়েছে। যখনই তাদের এসব কার্যক্রমকে শরীয়াহর মানদণ্ডে বিচার করার চেষ্টা করা হয়েছে তারা বিভিন্ন ভাবে তা এড়িয়ে গেছে। নিজেদের কল্পিত বুদ্ধিবৃত্তিক উৎকর্ষ, “হিকমাহ” আর মাসলাহাতের বুলি আওড়ে অভিযোগকারীকে বোকা, নির্বোধ, বাস্তবজ্ঞান ও কান্ডজ্ঞানহীন প্রমাণে সচেষ্ট হয়েছে।

কিন্তু বাস্তবতা হল বারবার এটাই প্রমাণিত হয়েছে যে ইখওয়ান ও তাদের সমমনা দলগুলো না ইসলাম অনুসরণ করছে আর না সঠিক ভাবে সেক্যুলার রাজনীতির ময়দানে খেলতে পারছে। বরং তারা দুই ময়দানেই ব্যর্থ হচ্ছে, যদিও তারা মনে করছে তারাই সফল, তারাই হক্বপন্থী। বাস্তবতা থেকে দু চোখ বন্ধ করে রেখে তারা মনে করছে, তারাই সবচেয়ে ভালোভাবে বাস্তবতা বুঝেছে। রাজনীতির নাম দিয়ে তারা শরীয়াহ অনেক আগেই ছেড়েছে, কিন্তু সেই রাজনীতির ময়দানেও তাদের দেখানো মতো কোন অর্জনই নেই। বরং মিশর থেকে বাংলাদেশে তারা ক্রমাগত মার খাচ্ছে। বুদ্ধিবৃত্তিক উৎকর্ষতা নিয়ে গর্ব করা এই ঘরানার লোকেরা আদতে এক বুদ্ধিবৃত্তিক নর্দমায় পড়ে আছে। গড়াগড়ি খাচ্ছে। আর নর্দমার আবর্জনাকে মেশক মনে করছে।

এক অন্ধকারের সুড়ঙ্গের গভীরে এই দল্গুলোর নীতিনির্ধারকেরা ঢুকে পড়েছে এবং আরো বেশি অন্ধকারের দিকে যাচ্ছে। আর যতোই তাদের বের হয়ে আসার জন্য বলা হচ্ছে, তারা গোঁ ধরে আরো দ্রুত অন্ধকারের দিকে ধাবিত হচ্ছে। আর সাথে সাথে লক্ষ লক্ষ নেতা-কর্মীকে নিয়ে যাচ্ছে। অথচ দুনিয়া ও আখিরাত হারানো ছাড়া এই পথের আর কোন গন্তব্য নেই। বস্তুত ইখওয়ান ও জামাতে ইসলামির মতো দলের উচিৎ কিতাবুল্লাহর নিচের আয়াত নিয়ে গভীর ভাবে চিন্তা করা, এবং নিজেদের কর্মপদ্ধতি ও আক্বিদার পুনঃবিশ্লেষন করা –

আর ইয়াহূদী ও নাসারারা কখনো তোমার প্রতি সন্তুষ্ট হবে না, যতক্ষণ না তুমি তাদের মিল্লাতের অনুসরণ কর। বল, ‘নিশ্চয় আল্লাহর হিদায়াতই হিদায়াত’ আর যদি তুমি তাদের প্রবৃত্তির অনুসরণ কর তোমার কাছে যে জ্ঞান এসেছে তার পর, তাহলে আল্লাহর বিপরীতে তোমার কোন অভিভাবক ও সাহায্যকারী থাকবে না। [আল বাক্বারা, ১২০]

শাইখ ডঃ তারিক আব্দুল হালিমের এ প্রবন্ধটি চিন্তাশীলদের জন্য উপকারি হবে ইনশা আল্লাহ। আর ইখওয়ানি-জামাতি চিন্তা দ্বারা প্রভাবিত কিন্তু অন্ধ অনুসরণের রোগে আক্রান্ত নন, এমন ভাইরাও আশা করি লেখা থেকে উপকৃত হবেন।

ইসলাম ও ইখওয়ানঃ সংঘাত যেখানে
শাইখ ডঃ তারিক আব্দুল হালিম Continue reading

যুগের পরিবর্তনের সাথে ফতোয়ার পরিবর্তনের মানে কী?

মুফতী তাকি উসমানি (দা বা)

পশ্চিমাদের গুণমুগ্ধ আধুনিক কিছু মডারেট মুসলিম ও ইসলামী রাজনীতির দোহাই দিয়ে যত্রতত্র দীনী বিকৃতিতে লিপ্ত ভাইদের বহুল প্রচলিত একটি সংশয় নিরসনে আলোচনা করছেন মুফতি তাকি উসমানি (দা বা) Continue reading

আধুনিক মুসলিমদের একটি ভয়াবহ সংশয়ঃ “আলেমদের বিরল ও বিচ্ছিন্ন মতের অনুসরণ….”

মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ

পিডিএফ ডাউনলোড

‘যাল্লাত, শুযুযাত, নাওয়াদের’ ইত্যাদি দ্বারা বোঝানো হয়, শরীয়তের কোন সুষ্পষ্ট প্রতিষ্ঠিত বিধানের বিপরীতে, প্রায় সকল ইমামদের মতামতের চেয়ে ভিন্ন ও সাংঘর্ষিক মত প্রদান করা। যেমন, ৫ ওয়াক্ত নামাজ ফরজ। কেও একজন এটাকে মুস্তাহাব বলল। মদ খাওয়া হারাম। কেও একজন, এটাকে জায়েজ বলল। এই ধরণের মতামত যদি কেও দিয়েও থাকেন, সেটা অনুসরণ করা হারাম ও নিকৃষ্ট কাজ। Continue reading

শুকনো খেজুর দিয়ে তৈরি গণতন্ত্রের মূর্তি!

শায়খ আবু মুহাম্মাদ আইমান

ইখওয়ানুল মুসলিমিনের পরিণতি থেকে শিক্ষা

ডাউনলোড

ইসলামের দৃষ্টিতে গণতন্ত্র ও ভোটাভুটি

ইসলামের দৃষ্টিতে গণতন্ত্র ও ভোটাভুটি

শায়খ আবু কাতাদা আল ফিলিস্তিন (হাফিজাহুল্লাহ)

ডাউনলোড

সংসদ ও সংসদ সদস্যদের ব্যাপারে বিধান কি?

প্রশ্ন:    সংসদগুলোর ব্যাপারে বিধান কি এবং যারা এগুলোতে যারা প্রবেশ করে তাদের ব্যাপারে বিধান কি?

উত্তরঃ

সংসদগুলোর ব্যাপারে বিধান হচ্ছে এগুলোর ইসলামে অনুমতি নেই এবং এগুলো শিরক ও কুফরের জায়গা এবং আমরা এগুলোকে তাগুত হিসেবে দেখি কেননা এগুলো হচ্ছে আইন প্রণয়নের এবং আল্লাহ’র অবতীর্ণ আইন(শরীয়াহ) ব্যাতীত অন্য ভাবে আইন তৈরীর স্থান। Continue reading

আমাদের বর্তমান পরিস্থিতিকে মাক্কী জীবনের সাথে তুলনা করা কী ঠিক হবে?

লেখকঃ শায়খ সুলায়মান আল-উলওয়ান (আল্লাহ্ তাঁকে সৌদির কারাগার থেকে দ্রুত মুক্তি দান করুন)

মাক্কী জীবনে সাহাবীরা দুর্বল অবস্থায় ছিলেন। আর রাসূলুল্লাহ (صلى الله عليه و سلم) বিভিন্ন কারণে মক্কার উদ্ভূত পরিস্থিতিগুলোকে মদীনার সময়ের থেকে ভিন্ন ভাবে মোকাবেলা করেছিলেন। Continue reading